ইউটিউব এর খুঁটিনাটি বিষয় (পর্ব ১)

আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই। আমরা অনেকেই ভাবছি একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলব,কিন্তু আমদের ইউটিউব সম্পর্কে কোনো ধারনা নেই।তাদের জন্য আজকে আমার এই পোস্ট। তাহ চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

পর্ব ১ এ আজকে আমরা যা জানতে পারব —

১.কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলব?

২.ভিডিও এডিট এন্ড আপলোড।

৩.ভিডিও এডিট।

৪.ভিডিও আপলোড।

৫.ইউটিউব চ্যানেল অপটিমাইজ।

চলুন এবার পর্ব ১এর বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক😊

★★কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলব?

Step 1:-

ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হলে আপনার একটি জিমেইল একাউন্ট খুলতে হবে যেটিতে অবশ্যই আপনার সঠিক তথ্য দিয়ে খোলা সম্পূর্ন ভেরিফাইড জিমেইল একাউন্ট হতে হবে।

Step 2 :-

ইউটিউব এ গিয়ে উক্ত জিমেইল দিয়ে Sing in করতে হবে। তারপরে উপরের দিমে বাম কোনে আপনার একাউন্টের ছবি দেখা যাবে ওখানে ক্লিক করে Your channel লিখায় ক্লিক করে আপনার পছন্দের নাম দিয়ে খুলে ফেলুন ইউটিউব চ্যানেল।

Trick :- চ্যানেলের নাম সব সময় ছোট রাখার চেষ্টা করবেন এবং আপনি যে বিষয়ে ভিডিও বানাবেন সেই রিলেটেট নাম দেওয়ার চেষ্টা করবেন।হয়ে গেল ইউটিউব চ্যানেল এখন আপনাকে ভিডিও বানাতে হবে ভিডিও বানানোর ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমন :-

১) ভিডিও বানানোর আগে আপনাকে একটি স্ক্রিপ্ট রেডি করতে হবে। স্ক্রিপ্ট হলো আপনি ভিডিওতে কি কি বলবেন কোন টপিকে বলবেন তা একটি কাগজে আগে নোট করা। এটি আপনার ভিডিওকে দিবে প্রোফেশনালিটি এবং আপনার ভিডিও হবে সুন্দর এবং গোছানো।

২) একবারেই পুরো ভিডিও না করে খন্ড খন্ড করে করুন ভিডিও। নতুনদের জন্য এটি বেশি কার্যকরি।

৩) ভিডিওতে ব্যবহার করুন কোমল এবং সুন্দর বেকগ্রাউন্ড মিউজিক। যেটি আপনার দশর্কের ভিডিও দেখার প্রতি আর্কষনকে আরো বাড়িয়ে তোলবে। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে কপিরাইট ফ্রি মিউজিক ব্যবহার করতে হবে।

বানানো হলো ভিডিও এখন ভিডিও এডিট এবং আপলোড করতে হবে।

★★ভিডিও এডিট এন্ড আপলোড★★

ইউটিউবে সফল হতে গেলে বা Youtube থেকে আয় পুরোটাই নির্ভর করে ইউটিউব ভিডিও কনটেন্ট এর উপর। আর কনটেন্ট নির্ভর করে ভিডিও কোয়ালিটি উপর। আর কোয়ালিটির অনেক বড় একটা অংশ নির্ভর করে ভিডিও এডিটিং এর উপর।

ইউটিউবে ভিডিও এডিটিং অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ভিডিও ভিউস পাওয়ার ক্ষেত্রে। সেজন্য ভালো একজন ইউটিউবার হতে গেলে ভালো একজন ইউটিউব ভিডিও ইডিটর হওয়া করা গুরুত্বপূর্ণ।

★★ভিডিও এডিট★★

১) এডিটের ক্ষেত্রে যেকোন এপ ইউজ করতে পারেন। প্রথমেই আপনার খন্ডায়িত ভিডিও ক্লিপ গুলোকে একত্রে করুন।

২) আপনার টপিক রিলেটেড একটি সুন্দর ইনট্রো থাকতে হবে ভিডিওতে। অনেক ফ্রি ওয়েবসাইট/মোবাইল এপ থেকে এই ইনট্রো বানাতে পারেন।

৩) যদি আপনি সঠিক এবং নিখুঁত ভাবে ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করতে পারেন তবেই করবেন আর না হলে কোন সাদা বা কালো কাপড়কে ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে ব্যবহার করুন। কারন সঠিক ভাবে ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করতে না পারলে আপনার ভিডিও প্রোফেশনালিটি এবং ভিউস দুটিই হারাবে।

★ভিডিও আপলোড★

১) আর্কষনীয় টাইটেল খুজে বের করতে হবে প্রথমেই যেটি অবশ্যই আপনার টপিক রিলেটেড হবে।

২) আর্কষনীয় থাম্বনেইল বানাতে হবে।

৩) আপনার টপিক রিলেটেড সঠিক ট্যাগ ইউজ করে আপলোড করুন আপনার ভিডিও।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল হলো, ভিডিও আপলোড হলো এখন আমাদের চ্যানেলকে সাজাতে হবে।

★ইউটিউব চ্যানেল অপটিমাইজ ★

১) আপনার চ্যানেলের নাম অনুযায়ী একটি লোগো বা প্রোফাইল পিকচার তৈরি করুন। তারপর সেটিকে আপলোড দিন আপনার চ্যানেলে

২) একটি সুন্দর ব্যানার বানান এবং সেটিকে ও আপলোড দিন

৩) চ্যানেলের এবাউট সেকশনে আপনার সম্পর্কে কিছু কথা লিখে আপনার ইমেইল /ফেইসবুক এসব দিন

৪) আপনার যেসব ভিডিও খুব ভালো হয়েছে সেগুলো হোম পেইজে রাখুন।

এভাবেই যাবতীয় সব কাজ করে আপনি খুলে ফেললেন একটি প্রোফেশনাল Youtube channel এবং হয়ে গেলেন একজন Content Creator।

আজ এই পর্যন্তই, পর্ব ২ এ দেখাব কি ভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করবেন।

ধন্যাবাদ✌

Leave a Comment